কেমন হবে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরিক্ষার সিলেবাস

কেমন হবে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরিক্ষার সিলেবাস

কেমন হবে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরিক্ষার সিলেবাস: প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে আবেদন ফর্ম রেজিষ্ট্রেশন শেষ হলেই কিভাবে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরিক্ষার সিলেবাস কেমন হবে, কিভাবে প্রস্তুতি নিবেন এবং কি কি কিভাবে পড়তে হবে তা নিয়ে সারাক্ষণ মাথার মধ্যে ঘুরপাক খেতে থাকে। তাই আপনাদের কথা চিন্তা করে আমাদের আজকের আয়োজন কেমন হবে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরিক্ষার সিলেবাস। আশা করি আপনাদের মনের সব দ্বিধা-দন্দ ভ্রান্তিসমূহ দূর হবে।

কেমন হবে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরিক্ষার সিলেবাস

পরীক্ষার ধরন:

১০০ নম্বরের মধ্যে লিখিত পরীক্ষায় ৮০ ও মৌখিক পরীক্ষায় বরাদ্দ থাকবে ২০ নম্বর। লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হবে এমসিকিউ বা বহুনির্বাচনী পদ্ধতিতে। বাংলা, গণিত, ইংরেজি ও সাধারণ জ্ঞানের প্রতিটি বিষয় থেকে ২০টি করে মোট ৮০টি নৈর্ব্যত্তিক প্রশ্ন থাকবে। প্রতিটি প্রশ্নের মান ১। প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য ০.২৫ নম্বর কাটা যাবে।

কি কি পড়তে হবে:

বাংলা ব্যাকরণ : বাংলা ব্যাকরণ থেকে ভাষা, বর্ণ, শব্দ, সন্ধি বিচ্ছেদ, কারক, বিভক্তি, উপসর্গ, অনুসরগ, ধাতু, সমাস, বানান শুদ্ধি, পারিভাষিক শব্দ, সমার্থক শব্দ, বিপরীত শব্দ, বাগধারা, এককথায় প্রকাশ থেকে প্রশ্ন আসার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই বাংলা অংশে ব্যাকরণের ওপর বেশি জোর দিতে হবে। অষ্টম ও নবম-দশম শ্রেণির বোর্ডে প্রণীত ব্যাকরণ বইয়ের সব অধ্যায় উদাহরণসহ পড়তে হবে।

বাংলা সাহিত্য:

সাহিত্য অংশে গল্প বা উপন্যাসের রচয়িতা, কবিতার পঙক্তি উল্লেখ করে কবির নাম থেকে প্রশ্ন থাকতে পারে। জানতে হবে কবি-সাহিত্যিকদের সাহিত্যকর্ম ও জীবনী সম্পর্কে। এ জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক বার্ডে বইয়ের লেখক পরিচিতি ও সাধারণ জ্ঞান বইয়ের সাহিত্যিক পরিচিতি, বই পরিচিতি অংশ পড়লে সুবিধা হবে।

গণিত:

গণিত পাটিগণিতের পরিমাপ ও একক ঐকিক নিয়ম, অনুপাত, শতকরা, সুদকষা, লাভক্ষতি, ভগ্নাংশ, বীজগণিতের সাধারণ সূত্রাবলি থেকে প্রশ্ন থাকে। মুখে মুখে ও সূত্র প্রয়োগ করে সংক্ষেপে ফলাফল বের করার অনুশীলন করতে হবে। রাফ করার জন্য প্রশ্নের পাশের খালি জায়গা ও পেন্সিল ব্যবহার করা যেতে পারে। জ্যামিতিতে ত্রিভুজ, চতুর্ভুজ, বর্গক্ষেত্র, রম্বস, বৃত্ত ইত্যাদির সাধারণ সূত্র ও সূত্রের প্রয়োগ দেখতে হবে। মাধ্যমিক পর্যায়ের পাঠ্যবই বিশেষত অষ্টম ও নবম-দশম শ্রেণির গণিত বই অনুসরণ করলে ভালো হয়।

ইংরেজি:

ইংরেজিতে Right forms of verb, Tense, Preposition, Parts of Speech, Voice, Narration, Spelling, Sentence Correction- এর নিয়ম জানতে হবে এবং গ্রামার বইয়ের উদাহরণ থেকে চর্চা করতে হবে। মুখস্থ করতে হবে Phrase and Idoims, Synonym, Antonym. ইংরেজি থেকে বাংলা অনুবাদ আসতে পারে। তাই বিভিন্ন নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন সমাধান করলে ভালো করা সম্ভব।

সাধারণ জ্ঞান:

সাধারণ জ্ঞান, বাংলাদেশ ও সাম্প্রতিক বিশ্ব থেকে প্রশ্ন বেশি আসে। বাংলাদেশ অংশে বাংলাদেশের শিক্ষা, ইতিহাস, ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধ, ভূপ্রকৃতি ও জলবায়ু, সভ্যতা ও সংস্কৃতি, বিখ্যাত স্থান, বাংলাদেশের রাষ্ট্রব্যবস্থা, অর্থনীতি, বিভিন্ন সম্পদ, জাতীয় দিবস থেকে প্রশ্ন আসে। আন্তর্জাতিক আন্তর্জাতিক অংশে বিভিন্ন সংস্থা, দেশ, মুদ্রা, রাজধানী, দিবস, পুরস্কার ও সম্মাননা, খেলাধুলা থেকে প্রশ্ন থাকে।

সাধারণ বিজ্ঞান:

সাধারণ বিজ্ঞান থেকে বিভিন্ন রোগব্যাধি, খাদ্যগুণ, পুষ্টি, ভিটামিন থেকে প্রশ্ন আসতে পারে। তাই সবকিছু মনোযোগ দিয়ে পড়তে হবে।

সাম্প্রতিক বিষয়:

পরীক্ষায় সাম্প্রতিককালে ঘটে যাওয়া বিষয়গুলো থেকে প্রশ্ন থাকবেই। তাই সাম্প্রতিক বিষয়ের ওপর বিশেষ নজর দিন। তার জন্য টিভি, খবরের কাগজ এবং কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স পড়তে পারেন।

আরও পড়ুন: কিভাবে সাধারণ জ্ঞানে অসাধারণ হবেন

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.